১৭ই মার্চ কি দিবস? । জাতীয় শিশু দিবস কবে ২০২৪?

প্রতিবছর ১৭ ই মার্চ সারা বাংলাদেশে জাতীয় শিশু দিবস পালন করা হয়ে থাকে। মূলত এই দিনটি জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের জন্মদিন। জাতির পিতার এই জন্মদিন কে মূলত শিশু দিবস হিসেবে পালন করা হয়ে থাকে। আওয়ামী লীগ সরকার ক্ষমতায় আসার পর এই দিনটিকে অর্থাৎ ১৭ই মার্চকে জাতীয় শিশু দিবস হিসেবে ঘোষণা করে।

এরপর থেকেই প্রতিবছর এই দিনটি শিশু দিবস হিসেবে পালন করা হয়। গত বছর অর্থাৎ ২০২২ সালে শেখ মুজিবুর রহমানের ১০০ তম জন্মবার্ষিকী পালন করা হয়। শতবর্ষ জন্মবার্ষিকীতে অনেক জাকজমকপূর্ণভাবে উদযাপন করা হয়েছিল। বাংলাদেশের প্রায় সকল জেলায় মুজিব শত বর্ষ পালন করা হয়।

দেখতে দেখতে আবারো মার্চ মাস চলে এসেছে। অনেক আগ্রহ ব্যক্তিগণ ইন্টারনেটে ১৭ই মার্চ কি দিবস তা খুঁজে থাকেন। ইতিমধ্যে আমরা জেনেছি যে 17 মার্চ বাংলাদেশ জাতীয় শিশু দিবস পালন করা হয়ে থাকে। আজকের এই পোস্টে আমি আপনাদের সাথে শিশু দিবস সম্পর্কে আরো বেশ কিছু তথ্য শেয়ার করার চেষ্টা করব। শিশু দিবস কি, কেন হয়েছিল বা কেন পালন করা হয় এই ধরনের আলাপ তথ্য পেতে সম্পূর্ণ পোস্ট পড়ুন।

বাংলাদেশের শিশু দিবস

বাংলাদেশ ছাড়াও বিশ্বের আরো বেশ কয়েকটি দেশে জাতীয় শিশু দিবস পালন করা হয়ে থাকে। সর্বপ্রথম তুরস্ক এই শিশু দিবস পালন করে। তুরুষকে বসবাসরত অধিবাসীরা ১৯২০ সালের ২৩ শে এপ্রিল প্রথম শিশু দিবস পালন করে থাকে। প্রতিবছর ২০শে নভেম্বর বিশ্ব শিশু দিবস এবং ১ লা জুন আন্তর্জাতিক শিশু দিবস পালিত হয়।

এর পাশাপাশি সারা বিশ্বে এই আন্তর্জাতিকভাবে অক্টোবর মাসের প্রথম সোমবার বিশ্ব শিশু দিবস ও শিশু অধিকার সপ্তাহ পালন করা হয়ে থাকে। এরই ধারাবাহিকতায় আমাদের বাংলাদেশেও জাতীয় শিশু দিবস পালন করা হয়। এই দিনটিকে জাতির জনক বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের জন্মদিন অর্থাৎ ১৭ই মার্চ পালিত হয়ে থাকে।

১৭ই মার্চ কি দিবস

ইতোপূর্বেই আমরা জাতীয় শিশুদের সম্পর্কে জেনে এসেছি। অনেকেই ইন্টারনেটে ১৭ ই মার্চ কি দিবস তা খুঁজে থাকে। বাংলাদেশে প্রতিবছর 17 ই মার্চ জাতীয় শিশু দিবস হিসেবে উদযাপন করা হয়ে থাকে। শেখ মুজিবুর রহমানের জন্মদিন উপলক্ষে এই শিশু দিবস। ২০২৩ সালের শিশু দিবস টি আগামী শুক্রবারে উদযাপিত হবে।

জাতীয় শিশু দিবস কবে ২০২৪

আপনি কি জানেন বাংলাদেশে জাতীয় শিশু দিবস উদযাপন করা হয়ে থাকে?  জাতীয় শিশু দিবস কবে ২০২৩ কবে তা অনেকেই খুঁজে থাকে। আপনাদেরকে জানাতে চাই যে প্রতিবছর 17 ই মার্চ জাতীয় শিশু দিবস হিসেবে পালন করা হয়। এই বছর আগামী শুক্রবার ১৭ই মার্চ অর্থাৎ জাতীয় শিশু দিবস পালিত হবে। বাংলাদেশ ছাড়াও বিশ্বের আরো কয়েকটি দেশে এই দিবসটি পালন করা হয়

১৭ মার্চ জাতীয় শিশু দিবস কেন

বাংলাদেশের স্বাধীনতার অন্যতম মহানায়ক হচ্ছে জাতির জনক বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান। তার এই জন্মদিনের স্মরণে প্রতিবছর জাতীয় শিশু দিবস পালন করা হয়। ১৯৯৭ সাল থেকে সারা বাংলাদেশ জুড়েই ঐতিহাসিক এই শিশু দিবস পালন করা হয় এবং উদযাপন করা হয়। এছাড়াও বাংলাদেশে এই দিনটিকে সাধারণ ছুটি হিসেবে পালন করা হয়ে থাকে।

১৭ই মার্চ কি সরকারি ছুটি

যে সকল সরকারি কর্মকর্তা ও কর্মচারীগণ রয়েছেন তারা ইন্টারনেটে সরকারি ছুটির তালিকা খুঁজে থাকে। ১৭ই মার্চ ঠিক সেরকম একটি উল্লেখযোগ্য সরকারি ছুটি। অনেকেই প্রশ্ন করে থাকেন যে ১৭ মার্চ কি সরকারি ছুটি? হ্যাঁ আপনাদেরকে জানাতে চাই যে ১৭ই মার্চ সারা বাংলাদেশে সরকারি ছুটি পালিত হয় এবং সকল সরকারি ও বেসরকারি অফিস আদালতের কার্যক্রম বন্ধ থাকে।

কিন্তু অত্যন্ত দুঃখের বিষয় যে, ২০২৩ সালের জাতীয় শিশু দিবসের ছুটি টি রোজ শুক্রবারে পড়েছে। কিন্তু আমরা জানি যে বাংলাদেশে শুক্রবার সকল সরকারি ও বেসরকারি অফিসগুলো সাপ্তাহিক ছুটি পালন করে থাকে। এই হিসেবে সরকারি চাকরিজীবীদের একটি ছুটি হাতছাড়া হয়ে গেল।

বঙ্গবন্ধুর জন্মদিন ও জাতীয় শিশু দিবস পালিত হয় কবে

বাংলাদেশে আন্তর্জাতিক বা বিশ্ব শিশু দিবস পালন হলেও জাতীয় শিশু দিবস ছিল না। ১৯৯৬ সালে আওয়ামী লীগ ক্ষমতায় আসার পর রাষ্ট্রীয় ‘খ’ শ্রেণিভুক্ত দিবস হিসেবে জাতির পিতা বঙ্গবন্ধুর জন্মদিন ১৭ মার্চকে জাতীয় শিশু দিবস ঘোষণা করে ওই সময়ের মন্ত্রিসভা।

১৯৯৬ সালের আগেও বাংলাদেশ কোন জাতীয় শিশু দিবস পালন করা হতো না। সে সময় শুধুমাত্র আন্তর্জাতিক শিশু দিবস পালিত হতো। কিন্তু ৯৯৬ সালে আওয়ামী লীগ ক্ষমতায় আসার পর রাষ্ট্রীয় ‘খ’ শ্রেণিভুক্ত দিবস হিসেবে জাতির পিতা বঙ্গবন্ধুর জন্মদিন ১৭ মার্চকে জাতীয় শিশু দিবস ঘোষণা করে। এর ১৯৯৭ সাল থেকেই সারা দেশে এই  দিবসটি পালন শুরু হয়। পরবর্তী সময়ে এ দিনটিকে সাধারণ ছুটিও ঘোষণা করা হয়।

শেষ কথা

জাতির জনক বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের স্মরণে জাতীয় শিশু দিবস পালন করা হয়ে থাকে। আজকের এই পোস্টে আমি আপনাদের সাথে ১৭ই মার্চ কি দিবস এবং এই দিনটি জাতীয় শিশু দিবস কেন তা জানানোর চেষ্টা করেছি। আশা করি জাতীয় শিশু দিবস কবে এ তথ্যটি সহ আরো অনেক অনেক তথ্য আজকের পোস্টের মাধ্যমে আপনি জানতে পেরেছেন। সম্পূর্ণ পোস্টটি পড়ার জন্য আপনাকে অসংখ্য ধন্যবাদ।

আরও দেখুনঃ

২৬ মার্চ স্বাধীনতা দিবস স্ট্যাটাস ২০২৪

১৭ই মার্চের কবিতা – ছোটদের শিশু দিবসের কবিতা ২০২৪

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *